বদরুজ্জামান শামীম সমাজ  সেবায় একজন প্রতিশ্রুতিশীল কাউন্সিলার প্রার্থী

24

 

বিশেষ প্রতিবেদক, ১৭ এপ্রিল,লন্ডন: ‘বদরুজ্জামান শামীম সাবেক ছাত্রনেতা ও যুব সংগঠক এবং সুবক্তা হিসেবে সুখ্যাত ও তরুণদের প্রেরণার উৎস। বিলেতে বাঙালি কমিউনিটির খুবই পরিচিত মুখ। বিশেষ করে সামাজিক ও রাজনৈতিক ভাবে তার সংগ্রামের অধ্যায় বেশ দীর্ঘ। জনগণের প্রতিটি ন্যায় সংগত অধিকার আদায়ের ক্ষেত্রে, দেশে এবং বিদেশে তার সরব উপস্হিতি সবসময় ছিল সবার আগে। বন্ধুসুলভ ও সহজ সরল জীবনের অধিকারী এই ব্যক্তিত্ব আমাদের সমাজকে অনেক দিয়েছেন।এবার এই সুযোগে আমাদের সকলের তার জন্য কিছু করার পালা। যারা লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটসের শেডওয়েল ওয়ার্ড-এর বাসিন্দা তারা অবশ্যই ভোট দিবেন।আর যারা এর আশেপাশের এলাকায় আছেন তারা শেডওয়েলে বসবাসরত বন্ধু বান্ধব,আত্বীয় ও পরিচিত লোকদের খুঁজে বের করুন। যারা সশরীরে প্রচারাভিযানে আসতে পারবেননা,তারা ফেইসবুক ও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও সাহায্য করতে পারবেন।আপনার একটি মাত্র ফোন কল কিংবা যোগাযোগ বদরুজ্জামান  শামীমের বিজয় নিশ্চিত হতে পারে। আসুন,সব ভেদাভেদ ভুলে ৩রা মে ঘর মার্কায় ভোট দিয়ে বদরুজ্জামান শামীমকে মুল্যায়ন করি।’

এটা ফেইসবুকে কোনো এক সৃহৃদের স্ট্যাটাস। যারা বদরুজ্জামান শামীমকে চেনেন তারা অবশ্যই এ স্ট্যাটাসটি পড়ে দ্বিমত পোষণ করবেন না।বিলেতে প্রবাসী বাঙালিদের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে এবং বাংলাদেশেও দেশের মানুষের সুখীজীবন প্রত্যাশায় রাজনৈতিক ও সমাজিক অঙ্গনে এক আপসহীন কর্মী তিনি। ঝড়ের মত ছুটে চলেন, অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কণ্ঠ শুধু নয়,লড়াকু সৈনিকও বদরুজ্জামান।আসলেই তাঁর অবদান এবং কর্মের প্রতিদান দেবার সময় এসেছে। তিনি তার কাজের ক্ষেত্রকে আরো গতিশীল ও প্রতিশ্রুতিশীল করতে আমাদের সাহায্য সহযোগিতা চেয়েছেন। সহযোগিতাটিই হলো একমাত্র ভোটদান। তার প্রতীক ঘর।ঘর মার্কায় ভোট দিয়ে তাকে মূল্যায়ন করার সুযোগটি কাজে লাগানো যতটুকু, তার চেয়ে বেশি তাকে জনসেবার ক্ষেত্রে একধাপ অগ্রসর করার অভিযানে অবদান রাখা।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের স্ট্যাটাসটির আবদার এটুকুই।