আমার একা হাঁটা

57

।। রোকশানা আখতার ।।

আমি মাঝে মাঝে ই একা একা হাঁটি। বিশেষ করে যেদিন আমার প্রিয়জন যাদের আমি হারিয়েছি (আম্মা আব্বা এবং পান্না আপা) তাদের কথা খুব মনে হয়।আজ কাজ থেকে ফিরতে দেরি হওয়ায় জিমে যাওয়া হয়নি। মনটাও একটু উদাস। ঘরে ফিরে ছেলেকে জিজ্ঞেস করলাম খাবার খেয়েছে কিনা। বললো খেয়েছে। আমি এক গ্লাস পানি খেয়ে কাপড় পাল্টিয়ে কেডস পরে নিলাম। ভাবলাম ছেলেকে সাথে নিব। খেয়াল করলাম পুত্র আমার বেশ ক্লান্ত। বেশ গরম পড়েছে। আমি ঘরের সব গুলো জানালা একটু একটু করে খুলে দিলাম। ফ্যান চালানো ছিল ফলে একটু পরেই ঘরটা বেশ আরামদায়ক মনে হলো। আমি বললাম আজ জিম করতে পারিনি তাই টেমসের পাড় ধরে হাঁটবো। তুমি যাবে? সে বললো আরেকদিন। স্কুলে আজ এক্সেসাইজের ক্লাস ছিল। সেডোয়েল বেসিনে অনেক রক ক্লাইম করেছে রোদে তাই টায়ার্ড। বললাম বিশ্রাম করো। আমি আসছি। জিজ্ঞাস করলাম বাইরের থেকে কিছু লাগবে কিনা। বললো,যদি তোমার কষ্ট না হয় তবে পাইনাপেল আর অরেঞ্জ নিয়ে এসো। বললাম আছছা। করিডোরের দিকে পা বাড়াতেই দেখি দুই নাতি নাতনী লেজ উঁচিয়ে আমার হাঁটুর কাছে মাথা ঘষছেন আর কিউ কিউ করছেন। বুঝলাম আদর চাচ্ছেন । দুজনকে হাত বুলিয়ে দিয়ে দরজা টেনে বেরিয়ে পড়ি।Ruk 1_n

বাসা থেকে বেরিয়ে দুমিনিট হেঁটে টেমসের পাড়ে চলে এলাম। হাঁটতে হাঁটতে নদী, নীল আকাশ ,সাদা সাদা ঘন মেঘ আর পাড়ের সৌন্দর্য দেখতে দেখতেই কিছু ছবি তুলেছিলাম। আর মন কেমন জানি করছিলো স্বদেশে ফেলে আসা আমার শৈশবের স্মৃতি বিজড়িত পুকুরপাড়, ধান ক্ষেতে পেরিয়ে ইনতাবাজ গ্রামের মেঠো পথ পাড়ি দিয়ে কাশ বন তারপর আখড়া মটের পাশ দিয়ে ,সরিষা ক্ষেতের আইল বেয়ে খোয়াই নদীর উঁচু বাধে গিয়ে দাঁড়ানো ।সব চোখের সামনে ভাসছিল। সেই সাথে হাঁটতে হাঁটতে হারানো প্রিয়জনদের মনে পড়ছিল। কেমন একটা কুন্ডলি পাকানো বাষ্প বুক বেয়ে গলার কাছে আটকে আছে অনুভব করি। মনে মনে ভাবি দেশটা আর মানুষ গুলো কি আগের মতো আছে। আমাদের পুরাতন খোয়াই নদীর পাড়ের গাছ লতা পাতা আর ফুলে ফুলে ঢাকা বাড়িটাকি আগের মতো আছে। এখনো কি গেলে আম্মার হাঁকডাক শুনা যাবে। আমার আদরের ভাইঝিগুলো কি দৌড়ে এসে আমার গলা ধরে ঝুলে পড়বে।Ruk2_n

কতক্ষন পানির দিকে তাকিয়ে বসেছিলাম। খেয়াল করলাম প্রায় এক ঘন্টার পথ হেঁটেছি। মনে পড়লো আরেহ ছেলেটা হয়তো ফ্রুট খাবে বলে মায়ের পথ চেয়ে আছে। দেরি দেখে হয়তো দুশ্চিন্তা করবে। আবার ফিরতি পথ ধরে দুপাশের সৌন্দর্য দেখতে দেখতে ছেলের জন্য ফ্রুট কিনে বাড়ির কাছে আসতেই ছেলের ফোন। আর ইউ অলরাইট?বললাম বাসার কাছে এসে পড়েছি বাবা। –লন্ডন, ১০ জুলাই ২০১৭।Ruk 4n