ইস্ট লন্ডন ও ফিন্সবারী মসজিদের সামনে শত শত মানুষের শান্তি সমাবেশ: বর্ণবাদ ও ঘৃণার বিরুদ্ধে একত্রিত হওয়ার আহবান

57

বিলেতবাংলা ২০ জুন:: রবিবার রাতে নর্থ লন্ডনের ফিন্সবারি পার্ক মসজিদের মুসল্লিদের ঘরে যাওয়ার পথে সন্ত্রাসী কর্তৃক ভ্যান হামলার প্রতিবাদ জানিয়ে সোমবার শতশত বিভিন্ন ধর্মবর্ণের মানুষ ব্রিটেনের অন্যতম প্রধান দুই মসজিদ ইস্ট লন্ডন ও ফিন্সবারী মসজিদের সামনে সলিডারিটি সমাবেশ করেছেন।

রবিবার রাতে সেভেন সিস্টার রোড়ের মুসলিম ওয়েলফেয়ার সেন্টারে এই আক্রমনে একজন নিরিহ মুসলিম নিহত হন। তার বাড়ী সিলেটের বিশ্বনাথে বলে জানাগেছে। আহত আরো ৯জনকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

সোমবার বিকেলে ঘটনাস্থল সেভেন সিস্টার রোড়ে শত শত বিভিন্ন ধর্ম, বর্ণ এমনকি ধর্মে বিশ্বাসীনয় এমন লোকও সহমর্মিতা জানাতে ফুল নিয়েএকত্রিত হন এবং তারা সন্ত্রাসী বিরোধী প্লেকার্ড বহন করেন।

এসময় ধর্মীয় নেতারা ‘ইউনাইট এগেইনস্ট ফেইসিজম, রেইসিজম এন্ড হেইটেড’ লেখা বেনার বহন করেন এবং রেইসিজম এর বিরুদ্ধে আবেগময়ী বক্তব্য রাখেন।

এদিকে সন্ত্রাস এবং বর্ণবাদের বিরুদ্ধে শান্তি সমাবেশ হয়েছে ইস্ট লন্ডন মসজিদের সামনে সোমবার বিকেলে। ইস্ট লন্ডন মসজিদ এবং লন্ডন মুসলিম সেন্টারের উদ্যোগে দ্যা ওয়ান লন্ডন ওয়ান কমিউনিটি শিরোনামের সমাবেশে ফিন্সবারি পার্ক মসজিদের সামনে সন্ত্রাসী হামলাসহ সব ধরনের সন্ত্রাসী এবং বর্নবাদী হামলার তীব্র নিন্দা জানানো হয়। সব ধরনের বিভেদ-বিভাজনকে পেছনে ফেলে ইস্টএন্ডের কমিনিউনিটি ঐক্যবদ্ধ থাকবে বলেও সমাবেশে দৃঢ়ভাবে উল্লেখ করেন বক্তারা।eastlondon3-1-696x392

ইস্ট লন্ডন মসজিদের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর দিলওয়ার খানের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাহী মেয়র জন বিগস, স্থানীয় লেবার এমপি রোশনারা আলী, , টাওয়ার হ্যামলেটসের বারা কমান্ডার স্যু, ইস্ট লন্ডন মসজিদের ঈমাম শায়খ আব্দুল কাইয়ুম, এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি মেযর কাউন্সিলার সিরাজুল ইসলাম, লিড মেম্বার আসমা খাতুন।eastlondon1-1-696x392

এদিকে সোমবার বিকেল প্রায় ৩টার দিকে ইস্ট লন্ডন মসজিদে বোমাতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ এসে পুরো মসজিদ খালি করে দেয়ে। এরপর তল্লাশি করে মসজিদের ভেতর থেকে একটি সন্দেহভাজন মোবাইল উদ্ধার করে পুলিশ। তবে মোবাইলের মালিককে এখনো পাওয়া যায়নি।