ন্যায় বিচারের দাবিতে ‘কেনসিংটন এন্ড চেলসী টাউন হল’ ঘেরাও,সেন্ট্রেল লন্ডনে বিক্ষোভ

33

বিলেতবাংলা ১৬ জুন: লন্ডনের ২৪ তলা এক আবাসিক ভবনে অগ্নিকান্ডে বহু মানুষ নিহত হওয়ার ঘটনায় সেখানে আজ ক্রুদ্ধ বিক্ষোভকারীরা স্থানীয় টাউন হল ঘেরাও করেছে।সেন্ট্রেল লন্ডনে  পিকাডেলি সার্কাস ও অক্সফোর্ড স্ট্রীটে থেরেসা মের পদত্যাগ ও কাউন্সিলের অবহেলাকে দায়ী করে কয়েকশ সাধারণ মানুষ বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ অর্থাৎ আমরা ন্যায় বিচার চাই শ্লোগান দিতে দিতে কয়েকশো বিক্ষোভকারী এক পর্যায়ে ‘কেনসিংটন এ্ন্ড চেলসী’ টাউন হলের ভেতর ঢুকে পড়েন। সেখান থেকে পুলিশ অন্তত একজন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করেছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

এই অগ্নিকান্ডের পর থেকে কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ এবং ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী টেরেজা মের সরকারের তীব্র সমালোচনা চলছিল এই বলে যে তারা ঘটনার গুরুত্ব অনুযায়ী বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে বিবিসির সংবাদাদাতারা জানাচ্ছেন, এ পর্যন্ত অন্তত তিরিশ জনের মৃত্যু এবং আরও অন্তত ৭০ জন নিখোঁজ থাকার ঘটনায় সেখানে তীব্র ক্ষোভ ধূমায়িত হচ্ছে। নিখোঁজদের পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করছেন, কর্তৃপক্ষ তাদের কোন তথ্য দিয়েই সহযোগিতা করছেন না।

প্রধানমন্ত্রী টেরেজা মে গতকাল ঘটনাস্থলে গেলেও ঘটনার শিকার হওয়া ব্যক্তি বা তাদের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ না করায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন।417A337A00000578-4611482-image-a-111_1497642347172

এর পর প্রধানমন্ত্রী আজ আবার একটি হাসপাতালে গিয়ে অগ্নিকান্ডে আহত চিকিৎসাধীনদের দেখতে যান।

কেনসিংটন এলাকার পরিস্থিতিতে সাংবাদিকরা ‘অগ্নিগর্ভ’ বলে বর্ণনা করছেন। সেখানে অনেক পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।

গতকাল লন্ডনের মেয়র সাদিক খানও ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ এবং প্রশ্নবানের মুখে পড়েছিলেন।

কিভাবে লন্ডনের একটি ২৪ তলা ভবনে এত দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে এত মানুষের মৃত্যু ঘটতে পারলো, তা নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

সরকারের তরফ থেকে এই ঘটনার একটি প্রকাশ্য তদন্তের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।4179E1A100000578-4611482-image-a-136_1497644293808