শিশুকে বাঁচাতে ভবন থেকে ফেললেন মা, ধরলেন ব্যক্তি!১৭ জনের মৃত্যু, ১৮ জন হাসপাতালে সংকটাপন্ন, নিখোঁজ ৭৬ জন

40

বিলেতবাংলা ১৬ জুন: যুক্তরাজ্যের লন্ডনের গ্রেনফেল টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ড লাগা ভবনের নয় বা ১০ তলা থেকে লাফিয়ে পড়া এক শিশুকে মাটিতে পড়ার আগেই ধরে ফেলেছেন এক ব্যক্তি। ওয়েস্ট লন্ডনের ল্যাটিমার রোডের গ্রেনফেল টাওয়ারের নিচে বুধবার এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে জানিয়েছে বিবিসি।

প্রত্যক্ষদর্শী সামিরা লামরানি বলেন, ভবনটির নয় বা ১০ তলায় আটকে পড়া এক নারী নিজের মেয়েকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। তিনি মাটিতে দাঁড়িয়ে থাকা জনগণের ওপর ভরসা করে ওই মেয়ে শিশুকে জানালা দিয়ে ফেলে দেন।

ওই প্রত্যক্ষদর্শী আরও বলেন, জানালার পাশে দাঁড়িয়ে এক নারী তার বাচ্চাকে নিচে ফেলে দেওয়ার ইঙ্গিত দেন। এরপর লোকজন জানালার নিচে মাটিতে জড়ো হয়ে ওই নারীকে তার বাচ্চা নিচে ফেলে দেওয়ার জন্য চিৎকার করতে থাকেন। একপর্যায়ে বাচ্চাকে নিচে ফেলে দেন ওই নারী। মাটিতে পড়তে না দিয়ে বাচ্চাকে ধরে ফেলেন উপস্থিত এক ব্যক্তি।

লন্ডনের গ্রেনফেল টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।১৮জন হাসপাতালে সংকটাপন্ন এবং ৭৬ জন নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানা গেছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, অনেকেই ভবনটিতে আটকে পড়েছেন। বাঁচার জন্য সহায়তা চেয়ে তাঁরা চিৎকার করছেন। ২৪ তলা (কোনো কোনো গণমাধ্যমে ২৭ তলা বলা হচ্ছে) ওই ভবনটিতে আগুন লাগার পর চারদিকে ধোঁয়ায় ছেয়ে যায়।

স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা বলছেন, ওই ভবন থেকে ইতিমধ্যে অনেক মানুষকে উদ্ধার করা হয়েছে। যদিও ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট সংখ্যা জানানো হয়নি। এ বিষয়ে লন্ডনের মেয়র সাদিক খান বলেছেন, উদ্ধার হওয়া অনেক মানুষই গণনার বাইরে রয়েছে। তাই সুনির্দিষ্ট সংখ্যা উল্লেখ করা সম্ভব হচ্ছে না।

গত মঙ্গলবার ১৩ জুন স্থানীয় সময় রাত ১টা ১৬ মিনিটে গ্রেনফেল টাওয়ারে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের প্রায় দুই শতাধিক কর্মী আগুন নেভাতে কাজ করছেন। গত সত্তরের দশকে নির্মিত আবাসিক এই ভবন নটিংহিলের কাছে অবস্থিত। ২৪ তলা ভবনে ১২০টি আবাসিক ফ্ল্যাট রয়েছে। লন্ডন পুলিশ বলছে, ভবনে আটকে পড়া বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।