ডিইউপি’র সমর্থনে সরকার গঠন করবেন থেরেসা

34

বিলেতবাংলা ৯ জুন: একক সংখ্যা গরিষ্ঠতায় ব্যর্থ হয়ে বাধ্য হয়ে ডেমোক্র্যাট ইউনিয়নিস্ট পার্টির (ডিইউপি) সমর্থনে সরকার গঠনের কথা জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে।

শুক্রবার রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সরকারি বাসভবন বাকিংহাম প্যালেসে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গিয়ে ‘সংশয়হীন’ ভবিষ্যত গড়ার লক্ষ্যে তিনি এমন ঘোষণা দেন। এ সময় তিনি সবাইকে একযোগে দেশ গড়ার কাজে উদাত্ত আহ্বান জানান।

ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া এগিয়ে নিতে ডিইউপির সঙ্গে ‘বন্ধু ও সহেযাগীেদর’ নিয়ে কাজ করার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেন তিনি।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (৮ জনু) যুক্তরাজ্যে অাগাম জাতীয় সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। শক্রবার ফল প্রকাশে দেখা যায়,, ৬৫০ আসনের মধ্যে  ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি পেয়েছে ৩১৮টি আসন। নিকটতম লেবার পার্টি পেয়েছে ২৬২টি আসন। ১০টি আসন পেয়েছে  ডেমোক্র্যাট ইউনিয়নিস্ট পার্টি (ডিইউপি)। সরকার গঠনে ১০ আসন দিয়ে ডিইউপি সমর্থন দিচ্ছে কনজারভেটিভ পার্টিকে।

থেরেসার সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন ৩২৬টি আসন। যা প্রাপ্ত আসন থেকে ৮টি অাসন কম। ফলে ডিইউপি’র সহায়তার ওপর ভরসা করেই সরকার গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, এ নির্বাজনে ভোট দিয়েছে ৬৮ দশমিক ৭ শতাংশ ভোটার। ২০১৫ সালের নির্বাচনের তুলনায় এ হার ২ শতাংশ বেশি। তবে দেশের অনেক জায়গায় দেখা গেছে রাজনীতি আবর্তিত হয়েছে শুধু বড় দু’টি দলকে কেন্দ্র করে। কনজারভেটিভ আর লেবার যত ভোট পেয়েছে, ১৯৯০ এর পর শুধু দুটো দলের এতো ভোট পাওয়ার এটা রেকর্ড।

tha-bg_299515ইউনাইটেড কিংডম ইন্ডিপেনডেন্স পাটি (ইউকিপ) পার্টি হারিয়েছে প্রচুর আসন। তবে যেমনটা মনে করা হচ্ছিল তাদের ভোটগুলো পাবে শুধু টোরিরা, সেটা হয়নি। টোরদের পাশাপাশি তাদের ভোট পেয়েছে লেবারও।

উত্তর লন্ডনের ইসলিংটন নর্থ আসন থেকে পুর্ননির্বাচিত হবার পর লেবার নেতা জেরেমি করবিন বলেন, তেরেসা মের ‘ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর’ সময় হয়েছে। তার উচিত সরে গিয়ে এমন একটা সরকারকে জায়গা করে দেওয়া- যারা দেশের জনগণের সত্যিকার অর্থে প্রতিনিধিত্ব করবে।

২০১৬ সালে ব্রেক্সিট গণভোটের পর পদত্যাগ করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন সেই সময়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা থেরেসা মে। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর সরকারের পূর্ণ মেয়াদ শেষ করার ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে জোট ছাড়ার প্রস্তাব দেওয়ার পর আগের অবস্থান থেকে সরে এসে গত এপ্রিলে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দেন থেরেসা মে।