আশা জাগিয়েও আশাহত করলো টাইগাররা

22

 

বিলেতবাংলা ৩ জুন: তামিমের সেঞ্চুরি কিংবা মুশফিকের ভরসা করার মতো ব্যাটিং জেতাতে পারেনি টাইগারদের। তামিম ক্যাচটা নিতে পেরেছিলেন কী না সেটাও আর আলোচনার বিষয় না, কারণ শেষ পর্যন্ত ম্যাচটা বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রণে থাকেনি।

 

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির উদ্বোধনী ম্যাচে তামিমের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিকে নিভিয়ে দিয়ে ইংল্যান্ডের জো রুটের সেঞ্চুরি এগিয়ে নিয়ে যায় ইংল্যান্ডকে।শেষ পর্যন্ত খেলা শেষ হয় টাইগারদের ৮ উইকেটের পরাজয়ের মধ্য দিয়েই।

 

যদিও টাইগার দলের অনিয়মিত বোলার সাব্বির রহমান ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স হেলসক ৯৫ বলে ৮৬ রান করার পর ফিরিয়ে দিয়িছিলেন, কিন্তু শেষ পর্যন্ত এ ভালো কিছুর শুরুটা ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ দল।

 

জয়ের লক্ষ্যে ৩০৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে মাশরাফির শিকার হয়ে দলীয় ৬ রানেই প্যাভিলিয়েনে ফিরে যান ইংলিশ ওপেনার জেসন রায়। আর দ্বিতীয় উইকেটের পতনের পর জেগেছিলো টাইগারদের জয়ের আশা। তবে শেষ পর্যন্ত সে আশায় গুড়েবালি।

 

ম্যাচ শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ের সময় টাইগার অধিনায় মাশরাফি বিন মুর্তজা স্বীকার করেন টাইগারদের ভুলগুলো।

 

তিনি বলেন, ‘৩০০ সব সময়ই ভালো স্কোর, তবে এই উইকেটে আমাদের রান কম হয়ে গেছে। তারা অসাধারণ ব্যাটিং করে ম্যাচটা আমাদের হাত থেকে নিয়ে গেছে।’

 

কেবল রানের লক্ষ্য নয়, বোলার কম পড়েছে স্বীকার করে নিয়ে ম্যাশ বলেন, ‘প্রথম ম্যাচ, তাই আটজন ব্যাটসম্যান নিয়ে খেলেছি। এটা নিয়ে ভাবতে হবে। মূল বোলারদের ভালো করতে হবে। বাড়তি একজন বোলার নিয়েও চিন্তা করতে হবে।’

 

এর আগে ইংল্যান্ডের বিখ্যাত ওভাল ক্রিকেট গ্রাউন্ড মাঠে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩০৫ রান সংগ্রহ করে ইংলিশদের জয়ের জন্য ৩০৬ রানের লক্ষ্য দেয় বাংলাদেশ।

 

বাংলাদেশের পক্ষে ১৪২ বলে ১২ টি চার ও ৩টি বিশাল ছয়ে ১২৮ রান করেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল।

 

তামিম ছাড়াও টাইগারদের হয়ে মুশফিকুর রহিম ৭৯, সৌম্য সরকার ২৮, সাব্বির রহমান ২৪ রান সংগ্রহ করেছেন। ইংল্যান্ডের পক্ষে লিয়াম প্লাঙ্কেট ৪ টি, স্টোকস ও বল ১ টি করে উইকেট লাভ করেন।