ভাস্কর্য অপসারণের প্রতিবাদে সিলেটে ছাত্র ইউনিয়নের মিছিলে হামলা

29

বিলেতবাংলা ২৭ মে: সুপ্রীম কোর্টের সামনে থেকে ভাস্কর্য অপসারণের সিলেটে ছাত্র ইউনিয়নের মিছিলে হামলা ঘটনা ঘটেছে। ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দােলনের ব্যানারে এই মিছিল থেকে হামলা চালানো হয়। শনিবার বিকেল ৬টার দিকে জিন্দাবাজার এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ছাত্র ইউনিয়নের ৬ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

জানা যায়, সুপ্রীম কোর্টের সামনে থেকে ভাস্কর্য অপসারণ ও এর প্রতিবাদে শুক্রবার ঢাকার প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দীসহ আটক ৪ নেতাকর্মীকে মুক্তির দাবিতে শনিবার বিকেলে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলা সংসদ।

একইসময়ে কোর্ট পয়েন্ট থেকে ‘মূর্তি অপসারণ ইস্যুতে বামদের উদ্ধতপূর্ণ আচরণের’ প্রতিবাদে মিছিল করে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন, সিলেট জেলা ও মহানগর শাখা।

ছাত্র ইউনিয়ন নেতারা জানান, জিন্দাবাজার আল হামরা শপিং সেন্টারের সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের মিছিল থেকে অতর্কিত হামলা চালানো হয়। এতে সংগঠনটির ৬ নেতাকর্মী আহত হন।

ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক দিপঙ্কর দাশগুপ্ত বলেন, তাদের মিছিলের পেছনে পুলিশ ছিলো। পুলিশের সামনে তারা আমাদের উপর হামলা চালিয়ে মারধর করে ও ব্যানার ছিড়ে ফেলে। এতে ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলা সংসদের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক জামিল আহমদ, কোষাধ্যক্ষ নাবিল এইচ, স্কুল বিষয়ক সম্পাদক পার্থ, সদস্য প্রদ্যুৎ, রুপক ও আরো এক কর্মী আহত হন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ইসলামী আন্দোলনের মিছিল থেকে ‘শেখ হাসিনার এ্যকশন ডাইরেক্ট এ্যাকশন’ শ্লোগান দিয়ে হামলা করা হয়।

হামলার কথা স্বীকার করে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন, সিলেট মহানগরের সভাপতি শিহাব উদ্দিন বলেন, আমরা বামদের উদ্ধতপূর্ণ আচরণের প্রতিবাদে মিছিল করছিলাম। এসময় বিপরীত পাশ থেকে ছাত্র ইউনিয়নের একটি মিছিল আসে। তারা সংখ্যায় কম ছিলো ও আমরা বেশি ছিলাম। আমরা তাদের সড়কের একটি পাশ নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করলে তারা শোনেনি। এতে আমাদের কিছু নেতাকর্মী ‘সেন্টিমেন্টাল’ হয়ে পড়ে ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

তবে এরকম হামলার কোনো খবর পাননি বলে জানিয়েছেন সিলেট কতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌছুল আলম।

 20 – Femme