বনানীর নারী নির্যাতন ঘটনায় লন্ডনে প্রতিবাদী সমাবেশ

56

বিলেতবাংলা ১২ মে: দেশের মত বনানীর ধর্ষণ ঘটনার প্রতিবাদে সোচ্চার বিলেতে বসবাসরত বাংলাদেশিরাও। বৃহস্পতিবার পূর্ব লণ্ডনের আলতাব আলী পার্কে প্রবাসীরা জড়ো হয়েছিলেন দেশজুড়ে নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতা, নির্যাতন ও ধর্ষণের প্রতিবাদে এবং সেই সাথে ধর্ষক ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচারের দাবীতে।গণজাগরণ মঞ্চ যুক্তরাজ্যের আহবানে সাড়া দিয়ে উপস্থিত প্রবাসীদের প্রত্যকেই তাদের সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ধর্ষকদের তড়িৎ বিচারের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তির নিশ্চিত করার আহবান জানান। এর পাশাপাশি ধর্ষণের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য পারিবারিক শিক্ষা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও পাঠ্যপুস্তকে মানবিক শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত করার ওপর জোর দেয়ার আহবান জানানো হয়। যুক্তরাজ্য গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র অজন্তা দেব রায়ের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কবি শামীম আজাদ, মুক্তিযোদ্ধা মেফতা ইসলাম, নাট্যব্যক্তিত্ব গোলাম কবির, সাংবাদিক হামিদ মোহাম্মদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব স্মৃতি আজাদ, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব বুলবুল হাসান, টাওয়ার হ্যামলেট লেবার পার্টি র আনিসুল ইসলাম আনিস, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব সায়মা আহমেদ, নাট্যকার মুকুল আহমেদ, ব্লগার ও আইনজীবী নিঝুম মজুমদার, ব্লগার সুশান্ত দাসগুপ্ত, ব্লগার আরাফাত তানিম, ফয়সাল ইফতেখার রাজা, জনাব সায়েদ আহমেদ সদ্, সাংবাদিক ইমরান আহমেদ, নাহিদ জায়গীরদার, সাইফুল ইসলাম মিঠু, শারমিন জান্নাত ভুট্টো, সিনথিয়া আরেফিন, রোমেল আলাউদ্দিন সহ আরো অনেকে।

বক্তারা তাদের বক্তব্যে তুলে ধরেন রাষ্ট্র ও সমাজের অসঙ্গতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার প্রয়োজনীয়তা। কিভাবে একটি পরিবার তার ছেলে সন্তানদের নৈতিক শিক্ষা দিতে পারে তার গুরুত্ব তুলে ধরা হয়। বাবা তার সন্তানদের সামনে মা ও মেয়ের সাথে যেমন ব্যবহার করবে ছেলে সন্তানও ঠিক একই চর্চা করবে অন্য নারীদের সাথে। তাই নিজ পরিবার থেকেই যদি সঠিক নৈতিক শিক্ষা দিতে পারে অভিভাবক তবেই ছেলে সন্তানদের চারিত্রিক অবক্ষয় থেকে দূরে রাখা সম্ভব বলে জানান । ধর্ষকদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত এ ধরনের প্রতিবাদ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন সভায় আগত সবাই। ভিকটিমদের আইনি সহায়তা দেয়ার পাশাপাশি জনসচেতনতা বাড়ার পক্ষেও জোর দেন তারা। প্রতিবাদ ও প্রতিরোধই পারে নারীর প্রতি সকল সহিংসতা, অত্যাচার, নির্যাতন আর ধর্ষণ রুখে দিতে পারে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রবাসীরা।