চিঠি সাক্ষরের মাধ্যমে ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া শুরু করলেন থেরেসা মে

47

বিলেতবাংলা ২৯ মার্চ: ইউরোপীয় ইউনিয়নকে (ইইউ) উদ্দেশ্য করে লেখা এক চিঠিতে স্বাক্ষর করে ব্রেক্সিটের আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করেছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। লিসবন চুক্তির অনুচ্ছেদ ৫০-এর অধীনে আনুষ্ঠানিক নোটিস দিয়ে লেখা চিঠিটি ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্কের কাছে পাঠানো হবে। টাস্কের কাছে চিঠি হস্তান্তরের পরই শুরু হবে ব্রেক্সিটের শর্তাবলী নিয়ে দু’বছর ব্যাপী আলোচনা ও বৈঠক।

টেরেসা মে’র চিঠিটি বুধবার যুক্তরাজ্য সময় বেলা সাড়ে ১২টায় ইইউ’তে ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত স্যার টিম ব্যারো পৌঁছে দেবেন।

বুধবার স্থানীয় সময় সকালে ক্যাবিনেট বৈঠকে এমপিদের উদ্দেশ্যে একটি বিবৃতি দেয়ার কথা রয়েছে থেরেসা মের। ওই বিবৃতিতে তিনি এমপিদের নিশ্চিত করে জানাবেন, ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বের হয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া ও কাউন্টডাউন শুরু হয়েছে।

ব্রেক্সিট আলোচনার সময় থেরেসা যুক্তরাজ্যের প্রতিটি মানুষের প্রতিনিধিত্ব করবেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। এই মানুষদের মধ্যে থাকবেন ব্রিটেনে বসবাসরত ইইউ নাগরিকরা, যাদের নাগরিক অবস্থান ব্রেক্সিটের পর কী হবে তা এখনো অনিশ্চিত। গত জুনে এক গণভোটে ব্রিটিশ নাগরিকদের ভোটে ব্রিটেনের ইইউ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে ব্রেক্সিট ঘিরে যে বিভক্তি তৈরি হয়েছে তা থেকে বের হয়ে আসার ব্যাপারেও কথা বলবেন।

এদিকে, বিরোধীদল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন বলেছেন, ইইউ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত তার দল সম্মান করে, তবে সরকারের প্রতিটি পদক্ষেপের দিকেই তারা নজর রাখবে। বিবিসি।