একুশের প্রথম প্রহরে ঢাকায় শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য

55

মহান একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অমর একুশের প্রথম প্রহরে ঢাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল শনিবার দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে প্রথমে রাষ্ট্রপতি এবং পরে প্রধানমন্ত্রী কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর শহীদদের স্মরণে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন তাঁরা।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী ১১টা ৫৩ মিনিটে এবং রাষ্ট্রপতি ১১টা ৫৬ মিনিটে শহীদ মিনারে এসে পৌঁছেন। প্রথমে প্রধানমন্ত্রীকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক অভ্যর্থনা জানান। পরে রাষ্ট্রপতি এসে পৌঁছলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও উপাচার্য তাঁকে অভ্যর্থনা জানান।

রাষ্ট্রের পক্ষে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের পর দলের পক্ষেও শহীদ বেদিতে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ফুল দেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর পর জাতীয় সংসদের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, চিফ হুইপ, বিরোধীদলীয় নেতা, ১৪ দল, তিন বাহিনীর প্রধানরা, পুলিশের মহাপরিদর্শক, র্যাবের মহাপরিচালক, অ্যাটর্নি জেনারেল, বিদেশি কূটনীতিক, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, ঢাকার মেয়র এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানায়। এরপর বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সাংস্কৃতিক সংগঠন একে একে শহীদ মিনারে ফুল দিতে থাকে।

শহীদ মিনারে খালেদা জিয়া : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গতকাল রাত ১টা ২৮ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এ সময় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা তাঁর সঙ্গে ছিল।

এদিকে শহীদ মিনারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে আসা ছাত্রদলের কেউ কেউ জুতা নিয়ে মিনারের বেদিতে উঠলে নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে।