লন্ডনে বাংলাদেশ মিশনের প্রেস উইংয়ের আয়োজনে সামিট ইভিনিং অব বাংলাদেশী পারফরমেন্স

57

বিলেতবাংলা ডেস্ক,৯ অক্টোবর: বাঙ্গালীর কৃষ্ঠি ক্যালচার এবং ইতিহাস ঐতিহ্যকে বিদেশীদের কাছে তুলে ধরতে এই প্রথম বারের লন্ডস্থ বাংলাদেশ মিশনের প্রেস উইংয়ের উদ্যোগে আয়োজন করা হলো সামিট ইভিনিং অব বাংলাদেশী পারফরমেন্স ২০১৬। ব্যতিক্রমী এই আয়োজনের মাধ্যমে তুলে ধরা হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং আমাদের সংস্কৃতির বিভিন্ন দিক। বৃহস্পতিবার ৬ অক্টোবর সন্ধ্যায় সেন্ট্রেল লন্ডনের নেহেরু সেন্টারে এর আনুষ্টানিক শুভ উদ্ভোধন করেন লন্ডন্থ বাংলাদেশ মিশনের ভারপ্রাপ্ত হাই কমিশনার খন্দকার এম তালহা।

সামিটের উদ্যোক্তা বাংলাদেশ মিশনের মিনিষ্টার প্রেস সাংবাদিক নাদিম কাদিরের সঞ্চালনলায় অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্টানে আরো বক্তব্য রাখেন নেহেরু সেন্টারের ডেপুটি ডিরেক্টর ভিবা মেহদিরেতা। ভিবা মেহদিরেতা বলেন বাংলাদেশের এই আয়োজন সত্যিই প্রশংসনীয়, তিনি বলেন বাংলাদেশ সহ সাউথ এশিয়ান ঐতিহ্যতে তুলে ধরতে নেহেরেু সেন্টার এবং ভারতীয় হাই কমিশন সহযোগীতা করবে। বাংলাদেশ চাইলে একযোগে ভারত ও বাংলাদেশ এজাতীয় আযোজনের উদ্যোগ নিলে তাদের সহযোগীতার হাত প্রসারিত থাকবে।

‘‘জয় বাংলা বাংলার জয়’’ এই সংঙ্গীতের মাধ্যমে অনুষ্টান শুরু হয় এবং জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে অনুষ্টানের সমাপপ্তি ঘটে। ভিডিও প্রজেক্টারের মাধ্যমে তুলে ধরা হয় মুক্তিযুদ্ধের প্রমান্য চিত্র বিউটিফুল বাংলাদেশ। প্রথম দিনের এই অনুষ্টানে আরো ছিল গান, নৃত্য, কবিতা আবৃত্তি।

এতে অংশ নেন কবি শামীম আজাদ, স্মৃতি আজাদ, গৌরি চৌধুরী, হাসি রাণি সহ বৃটেনের স্বনাম খ্যাত সাংস্কৃতিক কর্মীরা। আগামী ৯ অক্টোবর এ্র দ্বিতীয় ও শেষ পর্ব অনুষ্ঠিত হবে ইষ্ট লন্ডনের বার্ডি আর্ট সেন্টারে। এই আয়োজনের পন্সর করেছে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সি,হিলসাইড ট্রাভেলস, লন্ডন ট্রেডিশন, সোনালী বিজনেন্স সেন্টার, হামলেটস ট্রেনিং সেন্টার, জেএমজি কার্গো ও ফেইথ প্রিন্টিং।

এছাড়া মিডিয়া পার্টনার হিসেবে সহযোগীতা করছে বাংলা টিভি, জনমত ও বেতার বাংলা। সুন্দর এই সন্ধ্যাকে উপভোগ করতে বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে বাংলাদেশী ছাড়াও বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষ অংশ নেন।

অনুষ্টানে আগতদের অনেকেই বাংলাদেশ মিশনের প্রেস উইংয়ের এই আয়োজনের প্রশংসা করে বলেন এই মাধ্যমে বিদেশীদের কাছে আমাদের ঐতিহ্যকে তুলে ধরা যেমন সহজ হবে ঠিক তেমনি তৃতীয় প্রজন্মের বিটিশ বাঙ্গালীরা পাবে শেকড়ের সন্ধান।