শাহ আব্দুল করিমকে উৎসর্গ করে কলকাতায় শেষ হল ‘সহজ পরব’

55

বিলেতবাংলা ডেস্ক, ২০ সেপ্টেম্বর: আবার আরেকটা বছরের অপেক্ষায় রেখে এ বছরের মতো সমাপ্ত হয়ে গেল “সহজ পরব” (দ্যা রুট মিউজিক ফেস্টিভাল)। এবারের পরব উৎসর্গ করা হয়েছে বাংলাদেশের বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমকে। বিংশ ও একবিংশ শতকের বাংলার বাউলগানের প্রাণপুরুষ শাহ আবদুল করিমের জন্মশতবর্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানাতেই এই উৎসর্গ।  কলকাতার রবীন্দ্র সরবরের নজরুল মঞ্চে ২ থেকে ৪ সেপ্টেম্বর তিন দিন্যবাপী লোক উৎসবের এ আয়োজন করে গানের দল দোহার এবং লোপামুদ্রা প্রোডাকশনস।

শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টায় ‘শিকড়ের ডানা হোক, ডানার শিকড়’  এই স্লোগানের মাধ্যমেই উৎসব শুরু হয় সহজ পরবের ৩য় বর্ষ।

আয়োজক সূত্রে জানা যায় “সহজ পরব” অনুষ্ঠানটি  বিভিন্ন জায়গার, বিভিন্ন রকমের লোকসংগীত ও অন্যান্য শিল্পকে একই মঞ্চে আনার প্রয়াস নিয়েছে। দর্শকদের মনোরঞ্জন এর পাশাপাশি নানান শিল্পরীতি বিষয়ে সবাইকে অনুগত করাই ছিল এই অনুষ্ঠানের মূল লক্ষ্য।

২সেপ্টেম্বর উৎসবের উদ্বোধনী দিনে প্রদর্শিত হয় পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা নির্মিত সন্তুরের ওপর একটি প্রামাণ্যচিত্র। বিশেষ পরিবেশনায় ছিলো সিলেটের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী জামাল উদ্দিন হাসান বান্নার একক সংগীত । যিনি বাউল শাহ আবদুল করিমের সরাসরি শিষ্য। ছিলেন লোকগান শিল্পী সেঁজুতি দে। এছাড়াও ঝুমুর নৃত্য, বেণিপুতুল, কথাকলি নৃত্য, বিহু, বাউল, বহুরূপী, রণপা নৃত্য পরিবেশিত হয়। এদিন সম্মাননা জানানো হয় বিশিষ্ট ঢোল বাদক বলরাম হাজরা, বাউল গান ও শ্রীখোল শিল্পী উমা দাসী এবং ভাওয়াইয়া শিল্পী ধনেশ্বর রায়কে।

উৎসবের দ্বিতীয় (৩ সেপ্টেম্বর) দিন ছিলো বিদুষী শুভ মুদগল (সন্ত ভোজন- দোঁহা), অসীম সরকার (কবি গান) এবং বাংলাদেশের জলের গানের অনবদ্য পরিবেশনার সাথে ছিলো সিলেটের ঐতিহ্যবাহী নৃত্য ধামাইল।

উৎসবের শেষদিনে (৪ সেপ্টেম্বর) ছিলো ওয়াদলি ব্রাদার্স (সূফী গান), সুরজিৎ সেন (কীর্তন) এবং বাংলাদেশের শিল্পী অনীমা মুক্তির গোমস লোক গানের পরিবেশনা ও ধামাইল নৃত্য। উৎসবে বিশেষ নিবেদন ছিলো শ্মশাননৃত্য প্রদর্শনী।

আসছে বছর আবার হবে এই স্লোগানের মধ্য দিয়ে মৈত্রের বন্ধন রাখী বন্ধনের মাধ্যমে এবারের মতো সমাপ্তি ঘটে সহজ পরব ২০১৬।