ব্রিটেনে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনায় ঈদুল আযহা উদযাপিত

70

বিলেতবাংলা ডেস্ক, ১৩ সেপ্টেম্বর:  যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্বীর্যের মধ্য দিয়ে ব্রিটেন, ইউরোপ ও সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশে, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়াসহ কয়েকটি দেশেও বিপুল উৎসাহ, উদ্দীপনায় আজ উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল আজহা।

এদিকে সোমবার ব্রিটেনেি ফজরের নামাজের পর সূর্যোদয়ের কিচুক্ষণ পরই মুসলমানরা ঈদের জামায়াতে শরীক হতে মসজিদ মসজিদে ভীড় জমান। বহু মসজিদে সকাল ৭টায় হয় ঈদের প্রথম জামাত। এছাড়া মসজিদ গুলিতে একাদিক জামাতের ব্যবস্থা করা হয়।

এদিকে ব্রিটেনে আবহাওয় অনুকুলে থাকায় বহু জায়গায় খোলা মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য ছিল বাংলাদেশী অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটস বারার মাইল্যান্ড স্টেডিয়ামে। সকাল সাড়ে ৯টায় অনুষ্ঠিত জামাতে কয়েক হাজার ধর্মপ্রান মুসলমান অংশনেন। এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য সংখ্যক নারী পুরুষের উপস্থিতি ঘটে।

খোলা মাঠে ঈদের জামাত পড়তে পেরে অনেকেই আনন্দ প্রকাশ করেছে। তারা বলছেন ব্রিটেনে বসবাস করলেও মনে হচ্ছে দেশেই আছি। ঈদের জামাতের পর একে অপরকে বুকে জড়িয়ে ঈদের কুলাকুলি করেন।

ব্রিটেনে সোমবার সরকারী ছুটি না থাকায় অধিকাংশ কর্মজীবি মানুষ ঈদের জামাত শেষেই কাজে যেতে হয়েছে। আবার অনেকে ছুটি নিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে সময় কাটাচ্ছেন।

ঈদুল আযহায় প্রধানত গরু কিংবা ভেড়ী কোরবানী দিয়ে থাকেন ব্রিটেনের মুসলমানরা। তবে বাংলাদেশের মত কোরবানী নিয়ে এত হইচই করার সুযোগ নেই এখানে। কারন কোরবানীর অড়ার করতে গ্রোসারী দোকানে। তারা আবার নিদিষ্ট একটি প্রতিষ্ঠানে কোরবানী দিয়ে থাকে। সেখানে হাজার হাজার গরু ও ভেড়ী জবাই করা হয় একের পর এক। ব্রিটেনের মুসলমানদের দেখার সুযোগ খুবই কম হয় তার নামে কোরবানীকৃত গরু কিংবা ভেড়ীর সাইজ বা রং জানা।

কোরবানীর মাংশ ঘরে পৌছাতে অনেককেই দ্বিতীয় দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়।