লন্ডনে চালু হল নাইট টিউব সার্ভিস

41

বিলেতবাংলা ডেস্ক,২০ আগস্ট:   তিন বছরের পরিকল্পনার পর অবশেষে শুক্রবার থেকে চালু হল লন্ডন আন্ডারগ্রাউন্ডে বহু প্রতিক্ষিত নাইট টিউব সার্ভিস। প্রাথমিকভাবে সেন্ট্রাল লাইন এবং ভিক্টোরিয়া লাইন এই সার্ভিস চালু করা হয়। সপ্তাহের শুক্রবার ও শনিবার এই সার্ভিস পরিচালনার ঘোষনা দিয়েছে টিএফএল। চলতি বছরের অটামেই চালু হবে জুবিলি, নর্দান ও পিকাডেলী লাইনের সারারাত্রি সার্ভিস। এই সার্ভিস রাত সাড়ে ১২টা থেকে সকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত চলবে। কর্তৃপক্ষ আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ৫০হাজার মানুষ এই সুবিধা ভোগ করবেন। আর বাকী লাইনগুলি চালু হবে ২হাজার মানুষ এই সুবিধা নিতে পারবেন।

গত বছর সেপ্টেম্বর থেকে এই সার্ভিস শুরু হওয়ার কথা থাকলেও কর্মীদের স্টাইকের কারনে তা বিলম্ব হয়। শনিবার প্রথম প্রহরে লন্ডন মেয়র সাদিক খান ভিক্টোরিয়ার লাইনের একটি ট্রেনে করে যাত্রার মাধ্যমে এই নাইট টিউভ সার্ভিসের উদ্বোধন করেন।

এই সার্ভিসের উদ্বোধনের সময় তিনি যাত্রীসহ আন্ড্রারগ্রাইন্ড টিউভ সার্ভিস কমকর্তাদের সাথে কথা বলেন। এসময় তিনি বলেন, মানুষ খুবই এক্সাইডেট হয়েছেন। তারা এটাকে স্বাগত জানিয়েছে।

এদিকে রাত্রিকালীন টিউব সার্ভিস সারা রাত ব্যাপি আন্ডারগ্রাউন্ড ট্রেন চলাচল শুরু হওয়াকে স্বাগত জানালেন টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাহী মেয়র জন বিগস।

নাইট টিউব সার্ভিস শুরুর সাথে সাথে ব্রিটিশ ট্রান্সপোর্ট পুলিশ অফিসারস’ (বিটিপি) ট্রেনগুলো ও স্টেশনগুলোতে তাদের টহল জোরদার করেছে। সেন্ট্রাল ও ভিক্টোরিয়া লাইনে নাইট টিউব সার্ভিস চলাকালে স্টেশনগুলোতে উপস্থিত থেকে পুলিশ অফিসাররা যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন।

নাইট টিউবের জন্য পুলিশী নিরাপত্তা বিধানে টিএফএল এর পক্ষ থেকে ৩ দশমিক ৪ মিলিয়ন পাউন্ড বিনিয়োগ করা হয়েছে। পুলিশ সদস্যদের সহযোগিতায় থাকবে বিটিরি র‌্যাপিড-রেসপন্স গাড়িগুলো এবং ১২ হাজার সিসিটিভি ক্যামেরা। টিউব স্টেশনের বাইরের এলাকার নিরাপত্তা বিধানে সদা সতর্ক থাকবে মেট্রোপলিটান পুলিশ।

টাওয়ার হ্যামলেটসের বাসিন্দারা তাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রভাব ফেলা অন্যতম একটি ইস্যূ হিসেবে সমাজ বিরোধী আচরণজনিত কার্যকলাপকে চিহিৃত করেছেন এবং নাইট টিউব এর প্রভাব নিয়ে বাসিন্দারা উদ্বিগ্ন হতে পারেন। কাউন্সিল এটা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে যে, কেউ সমাজ বিরোধী আচরণজনিত অপরাধের সাথে বসবাস পছন্দ করে না এবং টাওয়ার হ্যামলেটসের বাসিন্দাদের জীবন মান উন্নত করে সত্যিকারের পরিবর্তন নিশ্চিত করতে আমরা বদ্ধপরিকর।

বাসিন্দারা যাতে করে সর্বাবস্থায় নিরাপত্তাবোধ করেন সেজন্য টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল তার রাস্তাগুলোতে এন্টি-সোশ্যাল বিহেভিয়ার এর ঘটনা মোকাবেলায় পুলিশের সাথে ঘনিষ্টভাবে কাজ করছে। এছাড়া কাউন্সিলের নিজস্ব এনফোর্সমেন্ট টিম থিও (টাওয়ার হ্যামলেটস’ এনফোর্সমেন্ট অফিসার) রা প্রয়োজনের সময়ে সহযোগিতা করবেন।

নির্বাহী মেয়র জন বিগস বলেন, টাওয়ার হ্যামলেটসে স্থানীয় বাসিন্দা ও বেড়াতে আসা লোকজনকে নিরাপদ রাখাটা আমরা অন্যতম একটি অগ্রাধিকার। যদিও নাইট টিউব সার্ভিস নিচ্ঞসন্দেহে একটি ভালো উদ্যোগ, তারপরও এই সার্ভিস চালুর কারণে আমাদের বারায় যাতে সমাজবিরোধী আচরণজনিত কার্যকলাপ বৃদ্ধি না পায়, সেব্যাপারে আমাদের অধিকতর সজাগ থাকতে হবে।

মেয়র আরো বলেন, রাত্রীকালীন টিউব ভ্রমনে লন্ডনবাসি যাতে নিরাপদবোধ করেন, এবং নাইটলাইফ হটস্পট হিসেবে পরিচিত স্থানগুলোর আশেপাশের বাসিন্দারা যাতে কোন কোন ধরনের দুর্ভোগের শিকার না হন তা নিশ্চিত করতে পুরো নাইট টিউব নেটওয়ার্ক জুড়ে অতিরিক্ত শতাধিক পুলিশ নিয়োজিত করা হচ্ছে। প্রথম দুটি টিউব লাইন সেন্ট্রাল ও ভিক্টোরিয়া লাইন শুক্রবার ও শনিবার ২৪ ঘন্টা ব্যাপি চলাচল শুরু করেছে। প্রাথমিক পর্যায়ে এই দুটি লাইন ৫১টি স্টেশনের মধ্যে যাওয়া আসা করবে।

এদিকে শুক্রবার থেকে নাইট টিউবের পাশাপাশি লন্ডনে আরো ৮টি বাসের নাইট সার্ভিস চালুর ঘোষনা দিয়েছেন মেয়র সাদিক খান। নতুন এই ৮টি বাস হচেছ, ৩৪,১২৩,১৪৫, ১৫৮,২৯৬, ই১, ডব্লিউ৩ এবং ডব্লিউ৭।