ব্রিটেন প্রবাসী সাংবাদিক যাবেন বাংলাদেশে

101

বিলেতবাংলা ডেস্ক, ২৩ জুলাই:  বাংলাদেশ সরকারের অতিথি হয়ে প্রতি বছর এক সপ্তাহের জন্য দু’জন করে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি সাংবাদিক যাবেন বাংলাদেশে। তারা সময় সাপেক্ষে দেখা করবেন প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারের উচ্চ পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে, মতবিনিময় ও সংবর্ধনায় অংশ নেবেন জাতীয় প্রেসক্লাবে, যাবেন চট্টগ্রাম ও সিলেটে।

শুক্রবার (২২ জুলাই) পুর্ব লন্ডনে সংবাদ সম্মেলনে সরকারের পক্ষে ‘আমার জন্মভূমি’ শীর্ষক এ সম্মাননা কার্যক্রম শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের মিনিস্টার (প্রেস) নাদিম কাদির।

কার্যক্রমটিতে প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে অনুমোদন দিয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, সাংবাদিকতায় দীর্ঘ ও প্রশংসনীয় অভিজ্ঞতা রয়েছে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী এমন সাংবাদিকদেরই এ সম্মান জানানো হবে। কার্যক্রমটির সঙ্গে তথ্য মন্ত্রণালয়, প্রধান তথ্য কর্মকর্তা, তথ্য অধিদফতর, লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রেস উইং এবং জাতীয় প্রেসক্লাব সম্পৃক্ত রয়েছে জানিয়ে নাদিম কাদির জানান, কার্যক্রমটির মূল অংশীদার হিসেবে কাজ করবে বাংলাদেশি মালিকানাধীন ব্রিটেনের খ্যাতিমান ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আইপিই ডেভেলপমেন্টস, লন্ডন। কক্সবাজারের সি-গাল হোটেলসহ সহযোগী হিসেবে ভূমিকা রাখতে চান এমন আরও অনেকের সঙ্গে আলোচনা চলছে বলেও জানান তিনি।

আগামী ডিসেম্বরে প্রথম দু’জন সাংবাদিককে দেশে নিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে ‘আমার জন্মভূমি’ কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। এ লক্ষ্যে আগামী সেপ্টেম্বর থেকে আগ্রহী সাংবাদিকদের কাছ থেকে আবেদন আহবান করবে হাইকমিশনের প্রেস উইং। আবেদনকৃতদের নাম দেশে পাঠিয়ে দেওয়ার পর তথ্য মন্ত্রণালয়ই ঠিক করবে, কোন দু’জন সাংবাদিক দেশে যাবেন।

নাদিম কাদির বলেন, ‘মিনিস্টার প্রেস হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ইংরেজিভাষী এ দেশেও বাংলাভাষার সংবাদ যে কতোটুকু গুরুত্ব বহন করে তা আমি অনুধাবন করতে পেরেছি। এখানে দায়িত্ব পালনরত বাংলাদেশি সাংবাদিকরা বাংলা ভাষা, সাহিত্য, সংস্কৃতিসহ বাংলাদেশকে তুলে ধরতে প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখছেন। এজন্য দেশের সরকারের পক্ষ থেকে অবশ্যই স্বীকৃতি পাওয়া উচিত বলে অনেকেই তাদের মনোভাব জানিয়েছেন আমাকে এবং আমিও এটি বিশ্বাস করি’।

‘আর এ মনোভাব থেকেই ব্রিটেন প্রবাসী সাংবাদিকদের ক্ষুদ্র পরিসরে হলেও এ স্বীকৃতি বা সম্মাননা জানানোর লক্ষ্য সামনে রেখেই সরকারের এ কার্যক্রম ‘আমার জন্মভূমি’।

তার দাখিল করা এ কার্যক্রমে অনুমোদন দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে নাদিম কাদির বলেন, ‘একমাত্র বঙ্গবন্ধু কন্যাই পারেন যার যা প্রাপ্য তা তাকে দিতে- এ কার্যক্রমে অনুমোদন তারই প্রমাণ’।

কার্যক্রমটির প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ায় আইপিই ডেভেলপমেন্টস গ্রুপের এমডি আদনান ইমামের প্রতি ধন্যবাদ জানিয়ে মিনিস্টার প্রেস বলেন, ‘সরকার ও আদনান ইমামের মতো প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীদের যৌথ পার্টনারশিপে আমরা যদি এমন কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারি, তাহলে আমাদের প্রবাসী প্রজন্মকে দেশমুখী করা খুব একটা কঠিন যুদ্ধ নয় বলেই আমি মনে করি’।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত আইপিই গ্রুপের এমডি আদনান ইমাম এমন একটি কার্যক্রমে জড়িত থাকতে পেরে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘দেশের সঙ্গে প্রবাসী প্রজন্মের সেতুবন্ধন তৈরির এমন কার্যক্রমে আইপিই গ্রুপ সব সময় পাশে থাকতে চায়’।