ব্রিটিশ এমপিকে গুলি ও ছুরিকাঘাতে হত্যা

66

বিলেতবাংলা ডেস্ক,  ১৬ জুন:  যুক্তরাজ্যের বিরোধী দল লেবার পার্টির এমপি জো কক্সকে গতকাল বৃহস্পতিবার দিনের বেলায় ছুরিকাঘাত ও গুলি করে হত্যা করেছে এক দুর্বৃত্ত। ব্যাটলি অ্যান্ড স্পেন আসনের ৪১ বছর বয়সী এই নারী এমপি লিডস শহরের অদূরে ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ারের ব্রিস্টলে একটি লাইব্রেরির কাছে হামলার শিকার হন। ওই হামলায় ৭৭ বছর বয়সী আরেক ব্যক্তি সামান্য আহত হয়েছেন।

ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ার পুলিশ জানিয়েছে, গুলিবিদ্ধ হওয়ার পরপরই জো কক্সকে অ্যাম্বুল্যান্সে করে লিডস শহরের একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। জো কক্সের ওপর হামলায় জড়িত সন্দেহে ব্রিস্টলের মার্কেট স্ট্রিট থেকে ৫২ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

জো কক্স ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) যুক্তরাজ্যের থাকার পক্ষে সোচ্চার ছিলেন। ব্রিস্টলে একটি বৈঠক করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। ইইউয়ে যুক্তরাজ্যের থাকা না-থাকার প্রশ্নে গণভোটের এক সপ্তাহ আগে এ হত্যার ঘটনা ঘটল। আগামী ২৩ জুন ওই গণভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

জো কক্স ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সিরিয়াবিষয়ক সংসদীয় কমিটিরও প্রধান। এর আগে বেশ কয়েকটি দাতব্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছেন তিনি। নারী অধিকার আদায়েও তিনি ছিলেন বেশ সোচ্চার।

জো কক্সের মৃত্যুতে ইইউয়ে যুক্তরাজ্যের থাকা না-থাকা সমর্থক উভয় পক্ষই গতকাল গণভোটের প্রচার তাৎক্ষণিকভাবে স্থগিত করে। তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনও গণভোট নিয়ে তাঁর একটি সমাবেশের পরিকল্পনা বাতিল করেছেন। এ ঘটনায় তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেন। এ ছাড়া মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এ ঘটনাকে ‘গণতন্ত্রের ওপর আঘাত’ বলে মন্তব্য করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী এক ক্যাফে মালিক ক্লার্ক রথওয়েল জানান, পঞ্চাশোর্ধ্ব এক বন্দুকধারী এমপি জো কক্সকে প্রথমে দুইবার গুলি করে। এতে তিনি মেঝেতে পড়ে গেলে বন্দুকধারী তৃতীয়বারের মতো তাঁর মুখে গুলি করে। ওই সময় এক ব্যক্তি বন্দুকধারীর দিকে এগিয়ে গেলে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। পরে হামলাকারী তার পকেট থেকে ছুরি বের করে এলোপাতাড়ি কক্সকে আঘাত করতে থাকে। তখন ভয়ে চিৎকার করে লোকজনকে ছোটাছুটি করতে দেখা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী আরেক ব্যক্তি বার্তা সংস্থা এপিকে জানান, দুই ব্যক্তি কিছু একটা নিয়ে তর্কাতর্কি করার সময় জো কক্স সেখানে উপস্থিত হয়ে তাদের থামতে বলেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ওই দুজনের একজন তার ব্যাগ থেকে বন্দুক বের করে জো কক্সকে গুলি করে। ওই সময় বন্দুকধারীকে ‘ব্রিটেন ফার্স্ট’ বলে চিৎকার করতে শোনা যায়।

‘ব্রিটেন ফার্স্ট’ হচ্ছে মুসলিমবিরোধী কট্টরপন্থী সংগঠন। তবে গতকালের হামলার পর তাদের ওয়েবসাইটে এক বিবৃতিতে এ হামলার ঘটনা অস্বীকার করে বলা হয়, তারা এ ধরনের কোনো কাজ সমর্থন করে না।

দুই সন্তানের জননী জো কক্স ২০১৫ সালে দেশটির সাধারণ নির্বাচনে জয়ী হন। সূত্র : বিবিসি, এএফপি ও রয়টার্স।