বাণিজ্য সম্পর্ক আরও বাড়াতে চান রুশনারা

80

বিলেতবাংলা ডেস্ক, ২৯ মে: লাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের ব্যবসা-বাণিজ্য আরও বাড়ানোর আগ্রহ দেখিয়েছেন বাংলাদেশে যুক্তরাজ্যের বাণিজ্য দূত রুশনারা আলী।

বুধবার পশ্চিম লন্ডনের একটি হোটেলে এক সংবর্ধনা সভায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ এমপি রুশনারা বলেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়াতে চেষ্টা করছেন তিনি।

“বাংলাদেশে বিনিয়োগ করা বড় দেশগুলোর একটি যুক্তরাজ্য। আমাদের ২৪০টি কোম্পানি বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে কাজ করছে।”

“এছাড়া দুই দেশের মধ্যে ২ দশমিক ৩ বিলিয়ন পাউন্ডের উপর বাণিজ্য হয়। এটি একটি বিশাল অঙ্ক এবং তা আরও বাড়ানো যেতে পারে।”

এজন্য ‘আর্থিক প্রবৃদ্ধি ও সমৃদ্ধি’র সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশে ‘সুশাসন’ প্রতিষ্ঠার উপরও গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

সাভারের রানা প্লাজায় ‘মর্মান্তিক দুর্ঘটনা’র কথা উল্লেখ করে ‘এ ধরনের ঘটনা রোধে’ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সরকারকেও দায়িত্ব নেওয়ার আহ্বান জানান রুশনারা।

বাংলাদেশের তৈরি পোশাকশিল্পে পরিস্থিতির ‘উন্নতি’ হলেও ‘তা পর্যাপ্ত নয়’ বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, “দায়িত্ব নেওয়ার আগে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর অফিসে আমি শর্ত দিয়েছিলাম, শ্রমিকদের উন্নত পরিবেশ, সুষ্ঠু প্রশাসন ও মানুষের সাথে ভালো আচরণ নিশ্চিত করা না গেলে বাণিজ্য ও আর্থিক প্রবৃদ্ধি প্রমোট করতে পারব না। ভালো কথা হচ্ছে, দুই দেশের সরকারই এ বিষয়ে একমত হয়েছে।”

বাংলাদেশ তার ‘হৃদয়ে’ রয়েছে উল্লেখ করে রুশনারা দারিদ্র্য দূরীকরণ, অর্থনৈতিক উন্নয়ন, জলবায়ু পরিবর্তনসহ নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলায় ‘সাহায্য করা’র ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

“আমার আসনের এক-তৃতীয়াংশ মানুষ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত। আমি জানি পূর্ব পুরুষের দেশকে দূরে ঠেলে দেওয়া উচিত নয়,” বলেন তিনি।

ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকা না থাকা নিয়ে জুনে আয়োজিত গণভোটে প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোট দেওয়ারও আহ্বান জানান তিনি। রুশনারা নিজে ব্রিটেনকে ইউরোপের মধ্যেই দেখতে চান।

যুক্তরাজ্যের খ্যাতনামা কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস বাংলাদেশে হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

“আমাদের ৭/৮টি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের ক্যাম্পাস বাংলাদেশে খুলতে যাচ্ছে। এটাও এক ধরনের রপ্তানি।”

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরাও যেন ‘সহজে যুক্তরাজ্যে যেতে পারে’ তা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাবেন বলে জানান লন্ডনের বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো থেকে নির্বাচিত এই পার্লামেন্ট সদস্য।

রুশনারা বাংলাদেশে যুক্তরাজ্যের ট্রেড এনভয় নির্বাচিত হওয়ায় যুক্তরাজ্য-বাংলাদেশ ক্যাটালিস্ট অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (ইউকেবিসিসিআই) আয়োজিত এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের প্রেসিডেন্ট বজলুর রশীদ।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ইউকেবিসিআইয়ের চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ, পরিচালক  আনওয়ার বাবুল মিয়া, বাংলাদেশের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান, ব্রেন্ট কাউন্সিলের মেয়র পারভেজ আহমদ ও লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি নবাব উদ্দিন বক্তব্য দেন। সভা শেষে রুশনারা আলীর হাতে একটি  সম্মাননা স্মারক তুলে দেওয়া হয়।