রেষ্টুরেন্ট মালিকের ৬ বছরের জেল

76

বিলেতবাংলা ডেস্ক, ২৪ মে: নিষেধাজ্ঞার স্বত্ত্বেও বাদাম মিশ্রিত খাবার ডেলিভারি দেয়ার পর সেই খাবার খেয়ে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় কাস্টমারের মৃত্যুর দায়ে এক রেস্টুরেন্ট মালিককে জেলদণ্ড দিয়েছে আদালত। দন্ডপ্রাপ্ত রেস্টুরেন্ট মালিকের নাম মোহাম্মদ জামান। বয়স ৫২ বছর। টিসাইড ক্রাউন কোর্টে তাকে ম্যানস্লটারের অভিযোগে ৬ বছর জেলদন্ড দেয়া হয়েছে। আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের জানুয়ারীতে, পাউয়েল উইলসন নামে ৩৮ বছর বয়সী এক কাস্টমার, নর্থ ইয়র্কশায়ারের ইন্ডিয়ান গার্ডেন থেকে রেষ্টুরেন্ট থেকে টেইকওয়ের অর্ডার দেন। এ সময় তিনি খাবারে কোনো ধরনের বাদাম বা পিনেট ব্যবহার না করতে বারণ করেন। কিন্তু রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ খরচ বাঁচানোর জন্যে সস্তা উপাদান হিসেবে টুকরো পিনেট বা বাদাম ব্যবহার করেন। যা খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পাশ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। এ কারণে পরবর্তীতে তার মৃত্যু হয়।

তবে আদালতে জামান অভিযোগ করে বলেন, তার ম্যানেজার রেস্টুরেন্ট চালাতেন। রেষ্টুরেন্টের কেনাকাটা এবং স্টাফ হায়ারিংয়ের দায়িত্বেও ছিলেন ম্যানেজার। এমন কি যখন পাউয়েল কারীর অর্ডার করেছিলেন, তখনও ম্যানেজার দায়িত্বে ছিলেন। সাজা প্রাপ্ত জামান ১৫ বছর বয়সে বাংলাদেশ থেকে এসেছিলেন। ইয়র্ক এবং নর্থ ইয়র্কশায়ারে বর্তমানে তার ৬টি রেষ্টুরেন্ট রয়েছে। তার রেষ্টুরেন্টগুলোর সুনম স্থানীয়ভাবে স্বীকৃত এবং বাংলাদেশ ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন ও ব্রিটিশ কারি এওয়ার্ড প্রাপ্ত। ম্যানস্লটারিকে অভিযোগে অভিযুক্ত ৪ সন্তানের জনক জামানকে অবহেলা এবং ফুড সেফটি অপরাধের ৬টি অভিযোগ আনা হয়। ব্যবসায়ী মোহাম্মদ জামানের প্রায় ২ মিলিয়ন পাউন্ড মূল্যের প্রোপার্টি রয়েছে। তবে উপরূক্ত মামলার কারণে তিনি ৩শ হাজার পাউন্ড ঋণ রয়েছে বলে দেখিয়েছেন।