কবি শুভেন্দু ইমাম গুরুতর অসুস্থ

593

বিলেতবাংলা ডেস্ক,৯ মে: কবি শুভেন্দু ইমাম ( মো. আবদুল হান্নান) গুরুতর অসুস্থ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। কবি শুভেন্দু ইমামের ছোটভাই শাহ আবদুল মালিক (আজাদ) এ খবর জানিয়েছেন। ৯ মে ভোররাতে কবি স্ট্রোকে আক্রান্ত হলে  সিলেটের নয়াসড়কে অবস্থিত মাউন্ট এডোরা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি বিশেষজ্ঞ চিকিতসকদের  নিবিড় পর্যবেক্ষণে  চিকিতাধীন আছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাঁর জ্ঞান পুরোপুরি ফিরেনি|  অচেতন অবস্থা থাকায় কথা বলতে পারছেন না বলে রাহী ইমাম ও প্রফেসর সামসুল আলম জানিয়েছেন।

কবির সহধর্মিণী রাহী ইমাম জানিয়েছেন, কবির কনিষ্ট পুত্র প্রিয়ম পেশায় চিকিতসক।  পেশাগত কারণে সাধারণত  প্রিয়ম রাতে  দেরীতে বাসায় ফেরেন। প্রতিদিন  গেইট খুলে দেন কবি নিজে। এদিন তিনি ঘুমঘোর অবস্থায় রাহীকে গেইট খুলতে বলেন। রাহী  পুত্রকে গেইট খুলে দিয়ে এসে ঘুমিয়ে পড়েন। সকালে কবিকে ডেকে তুলতে গিয়ে দেখেন ঘুমে রয়েছেন। এরপর সকাল ১০টা বাজার পরও ঘুম থেকে না ওঠায় রাহী ইমামের সন্দেহ  হয়। তখন তাঁর অচতন হয়ে পড়া রাহী ইমামের দৃষ্টিগোচর হয়। এরপর দ্রুত  তাকে হাসপাতালে স্থানান্তর করলে বিশেষজ্ঞ চিকিসকরা সিটিস্কেন করে দেখেন তিনি ব্রেইন  স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছেন।

এদিকে, কবি শুভেন্দু ইমাম অসুস্থ হওয়ার খবরে  কবির গুণগ্রাহী,ভক্ত, বন্ধুবান্ধবসহ আত্মীয়স্বজনরা হাসপাতালে ছুটে যান। যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় প্রবাসী স্বজন ও বন্ধুবান্ধবরা কবির স্ট্রোকে আক্রান্ত  হওয়ার খবরে উদগ্রীব । সকলেই কবির আশু রোগমুক্তি কামনাসহ চিকিতসার খোঁজখবর নিচ্ছেন। জ্যেষ্ঠপুত্র রমেন লন্ডনে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, কবি শুভেন্দু ইমাম সিলেট বিভাগীয় শিল্পকলা একাডেমীর সাংস্কৃতিক কর্মকর্তা হিশেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে অবসর যাপন করছেন। সিলেটের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে প্রগতিশীল ধারাকে বেগবান করতে শিকড় সংস্কৃতি চক্র নামে একটি সংগঠন ১৯৮৩ সালের ১ জানুয়ারি প্রগতিশীল সংস্কৃতিকর্মীদের নিয়ে গড়ে তুলেন। এই সংগঠনের তিনি সভাপতি ও সেক্রেটারি ছিলেন কবি হামিদ মোহাম্মদ। স্বৈরাচারি সামরিক শাসন,সাম্প্রদায়িকতা ও মৌলবাদ বিরোধী আন্দোলনে এই সংগঠন  নেতৃত্বদান করে। এছাড়া সিলেটের খ্যাতিমান মননশীল বইয়ের দোকান ‘বইপত্র‘এর তিনি স্বত্বাধিকারি।