আগামী ১ মে পূর্ব লন্ডনের আলতাব আলী পার্কে মহান মে দিবসের সমাবেশ ও গণসংগীত

83

 

 ‘মহান মে দিবসের চেতনায় সারা বিশ্বের শ্রমজীবী মানুষ উজ্জীবিত হোক; শোষণমুক্ত সমতার বিশ্ব গড়ার সংগ্রামে নিয়োজিত পৃথিবীর সকল শ্রমজীবী মানুষের প্রতি লড়াকু সংহতি’- এই শ্লোগানকে সামনে রেখে আগামী ১ মে পূর্ব লন্ডনের আলতাব আলী পার্কে বিকেল ৫ টায় আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবসের গনসমাবেশ ও গণসংগীতের আয়োজন করা হয়েছে। বাংলাদেশি ওয়ার্কার্স কাউন্সিল- যুক্তরাজ্যের আয়োজনে অনুষ্ঠানটি সফল করার জন্য ব্রিটেনের বিভিন্ন ট্রেড ইউনিয়ন ও গণ মাধ্যম সহযোগিতা করছে।

সমাবেশে বিলেতের মূলধারার ট্রেড ইউনিয়ন, লেবার মুভমেন্ট ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখবেন। নির্ধারিত বক্তাদের মধ্যে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখবেন- টাওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র জন বিগস; ইউনাইট ইউনিয়নের চীফ অফ স্টাফ এনড্র মারী; ব্রিটেনের পরিবহন শ্রমিক নেতা অ্যালেক্স গর্দন; লেবার পার্টির জি এল এ প্রার্থী উন্মেষ দেশাই, সিপিবি-যুক্তরাজ্যের সভাপতি ডাঃ আহমেদ জামান, বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলনের সংগঠক- গবেষক ডেভিড রোসেনবারগ, শ্রমিক আন্দোলনের ইতিহাসবিদ প্রফেসর মেরী ডেভিস প্রমুখ।

সমাবেশে গণসংগীত পরিবেশন করবেন উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী- যুক্তরাজ্যের শিল্পীবৃন্দ।

এই অনুষ্ঠানের প্রস্তুতির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য গত ১১ এপ্রিল বাংলাদেশি ওয়ার্কার্স কাউন্সিল- যুক্তরাজ্যের এক সভা ব্রিকলেনে অনুষ্ঠিত হয়। সভা থেকে প্রবাসে কমিউনিটির সর্ব স্তরের মানুষকে ১ মে আলতাব আলী পার্কের সমাবেশে যোগদানের আহবান জানানো হয়েছে। সভায় ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজার ঘটনার তৃতীয় বার্ষিকীতে হতাহত শ্রমিকদের পুনর্বাসন, দোষীদের অবিলম্বে শাস্তি, শ্রমিকদের নিরাপদ কর্মস্থল নিশ্চিত ও ন্যায্য মজুরির দাবি জানানো হয়।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের আহবায়ক অ্যাড আবিদ আলী, সদস্য সচিব শাহরিয়ার বিন আলী, নির্বাহী সদস্য নিসার আহমেদ, মঞ্জুলিকা জামালি, সৈয়দ এনামুল ইসলাম, আনসার আহমেদ উল্লাহ, আমিনুর রহমান খান, হারুনুর রশিদ,নাসির আহমেদ নাজ, আখতার চৌধুরী, মুশফিকুর নূর, সুশান্ত দাশ প্রশান্ত, তানভির ইলিয়াস, তাজুল ইসলাম তাজ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, যুক্তরাজ্য প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মজীবী মানুষের কল্যানে কাজ করার প্রত্যয় নিয়ে গত ১৫ মার্চ পূর্ব লন্ডনে এক সভার মাধ্যমে ‘বাংলাদেশী ওয়ার্কার্স কাউন্সিল, যুক্তরাজ্য’ গঠিত হয়েছে। এদেশের পাবলিক সার্ভিস সংক্রান্ত বিষয়ে পরামর্শ দেবার পাশাপাশি এখানকার কর্মজীবী মানুষের স্বার্থ সংরক্ষন করতে অনেকটা ট্রেড ইউনিয়নের আদলে কাজ করবে এ নুতন সংগঠনটি। এজন্য মূলধারার প্রগতিশীল রাজনীতি ও ট্রেড ইউনিয়ন আন্দোলনের সাথে নিজ কমিউনিটির কর্মজীবীদের সম্পৃক্ত করার চেষ্টা চালাবে। সাথে সাথে বাংলাদেশের প্রগতিশীল শ্রমিক আন্দোলন ও বিশ্বশ্রমিক আন্দোলনকে সক্রিয় সমর্থন করে যাবে।